টানা শৈত্যপ্রবাহে সারাদেশে বিপর্যস্ত জনজীবন


সি নিউজ ডেস্ক:  হিমশীতল বাতাসে কাবু সারাদেশের মানুষ। সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছেন ছিন্নমূল ও কর্মজীবীরা। শীতের কারণে বাড়ছে রোগ-ব্যাধি। নষ্ট হচ্ছে চলতি মৌসুমের ধান, গম ও আলুর বীজতলা। শীতের তীব্রতা আরো বেশ কয়েকদিন থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

টানা ১১ দিনের শৈত্যপ্রবাহে বিপর্যস্ত পঞ্চগড়ের জনজীবন। হাড় কাঁপানো শীত আর ঘন কুয়াশা বেড়েই চলেছে। সাথে রয়েছে উত্তরের হিমেল বাতাস। দীর্ঘ সময় ধরে চলা শৈত্যপ্রবাহে স্থবির হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা।

কুড়িগ্রামে টানা শৈত্যপ্রবাহে ব্যাহত হচ্ছে কৃষিকাজ। হলুদ ও লাল বর্ণ ধারণ করে নষ্ট হচ্ছে আলু ও গমের বীজতলা। সর্ব উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটে ঘন কুয়াশা ও হিমেল হাওয়ার কারণে কৃষক ও শ্রমজীবী মানুষ ঘরের বাইরে যেতে পারছে না। ঠান্ডায় সীমাহীন কষ্টে আছেন ছিন্নমুল ও তিস্তা-ধরলা নদীর চরাঞ্চলে মানুষ। 

ফরিদপুর অঞ্চলে গত পনেরো দিন ধরে তাপমাত্রা রেকর্ড এক সংখ্যায় ঘুরপাক খাচ্ছে। বেড়েছে নিউমোনিয়া, কোল্ড এলার্জি, এজমাসহ শীতজনিত রোগের প্রকোপ।

চুয়াডাঙ্গায় অব্যাহত রয়েছে তীব্রশীত। মেহেরপুরে কনকনে শীত আর ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে দিনের অর্ধেকটা সময়। ঝিনাইদহেও অনেক বেলা পর্যন্ত কুয়াশার চাদরে চারদিক ঢেকে থাকায় ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। স্কুলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির হারও গেছে কমে। 

এছাড়াও লক্ষ্মীপুর, গোপালগঞ্জ, নওগাঁ, নীলফামারীসহ সারাদেশের বিভিন্ন জায়গায় মৃদু শৈত্য প্রবাহ ও হিমেল হাওয়ায় স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। কুয়াশায় দৃষ্টি সীমা কমে আসায় বিভিন্ন সড়কে যানবাহন চালছে ধীর গতিতে।
 

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments