ইলিশের গায়ে লেগেছে বৈশাখী হাওয়া


সি নিউজ ডেস্ক : আর কদিন পরেই আসছে বাঙলা বর্ষবরণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। সে উৎসবকে ঘিরে সবাই কমবেশি নিচ্ছেন প্রস্ততি। এসব প্রস্তুতির মধ্যে অন্যতম অনুষঙ্গ ইলিশ।

নববর্ষের প্রথম দিনে পান্তা ভাতের সঙ্গে অনেকেই খান ইলিশ। কিন্তু পহেলা বৈশাখের এখনো সপ্তাহখানেক বাকি থাকলেও এরই মধ্যে ইলিশের গায়ে লেগেছে বৈশাখী হাওয়া। আর সে হাওয়ায় ইলিশের দাম এখনই বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ।

শনিবার সকালে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে গিয়ে দেখা গেছে, সব ইলিশের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। রাজধানীর সবচেয়ে বড় এই পাইকারি বাজারে, সাড়ে ৯শ গ্রাম ওজনের ইলিশ হালি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৭০০০-৭৫০০ টাকা যা গত সপ্তাহে ছিলো ৩৭০০-৪২০০ টাকা, ৮শ গ্রাম ওজনের ইলিশ হালি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৫৫০০-৬০০০টাকা। যা গত সপ্তাহে ছিলো ৩০০০-৩৫০০ টাকা।

সাড়ে ৭শ গ্রাম ওজনের ইলিশ হালি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪৫০০-৫০০০ টাকা যা গত সপ্তাহে ছিলো ২৫০০-৩০০০ টাকা, ১ কেজি ওজনের ইলিশ কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ২৪০০-২৮০০ টাকা যা গত সপ্তাহে ছিলো ১৫০০-১৭০০ টাকা,

১ কেজি ৩শ গ্রাম ওজনের ইলিশ কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৩২০০-৩৫০০ টাকা যা গত সপ্তাহে ছিলো ১৯০০-২২০০ টাকা, ১ কেজি ৪শ গ্রাম ওজনের ইলিশ কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৩৭০০-৪০০০ টাকা যা গত সপ্তাহে ছিলো ২৪০০-২৫০০ টাকা।

ইলিশ কিনতে আসা শরিফুল ইসলামের কাছে দাম কেমন জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি প্রতি সপ্তাহে ইলিশ কিনি কারণ আমার ছোট মেয়েটা ইলিশের পাগল। ইলিশ ছাড়া বাবুটা আমার ভাতই খাই না। তাই আমার কাছে শুধু বৈশাখ নয় সবসময় ইলিশের দরকার হয়।

গত সপ্তাহে যে ইলিশ কিনেছি ১ কেজি ওজনের ১৭শ টাকা দিয়ে সেই ইলিশ আজ কিনলাম ২৮০০ টাকা দিয়ে। এটা নিঃসন্দেহে খারাপ দিক। কোনো উৎসবকে কেন্দ্র করে কেনো জিনিসের দাম বাড়বে। বরং হওয়া উচিত উল্টো।

এখানে ব্যবসায়ীদের হাতে আমাদের জিম্মি হয়ে দ্বিগুণ দামে ইলিশ কিনতে হচ্ছে। এটা শুভ দিক নয়।

কথা হয় আরও একজন ইলিশ কিনতে আসা হাবিবুল বাহারের সঙ্গে। দাম বেড়েছে নাকি কমেছে এমন প্রশ্ন করতেই তিনি বলেন, ভাই সকাল ৬টা থেকে ঘুরছি বাজারে।

যে দাম তাতে আর ইলিশ কেনা হলো না। প্রতি শনিবার আসি কারওয়ানবাজারে বাজার করতে। গত সপ্তাহে ইলিশ কিনব বলেও কেনা হয়নি।

আজ শনিবার ইলিশের নিয়ত করে আসলাম কিন্তু দাম পাক্কা দ্বিগুণ। আমাদের মতো মধ্যবিত্তদের ইলিশ খাওয়া সাজে না। মুখটা গোমরা করেই কথাগুলো বললেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, গত সপ্তাহে ১ কেজি ৪শ গ্রাম ওজনের ইলিশ চেয়েছিলো ২৫শ টাকা আজ চায় ৪ হাজার টাকা। এতো টাকা দিয়ে কিভাবে ইলিশ খাব ভাই বলেন।

প্রাইভেট চাকরি করি সব কিছু মিলিয়েই তো চলতে হয়। তাই যেকোনো উৎসব আমাদের জন্য নয়, উৎসব হলো ধনীদের জন্য, যাদের সামর্থ্য আছে তাদের জন্য।

এদিকে ইলিশের দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে কারওয়ানবাজারের ইলিশ মাছ ব্যবসায়ী মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, ২০ বছর ধরে মাছের ব্যবসা করি। বৈশাখ আসার সময় হলেই দাম শুধু দ্বিগুণ নয় তিনগুণ হয়ে যায়।

কারণ, মাছের ঘাটে কিন্তু দাম বাড়ে না। মাছের দাম বাড়ায় আড়ৎ ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা। তাদের কাছ থেকে আমাদের মাছ কিনতে হয়। সুতরাং ব্যবসায়ীরা দাম বাড়ালে আমাদের বেশি দামেই বিক্রি করতে হয়।

সামনে দাম আরও বাড়বে কারণ হিসেবে বলছেন, মাছের চাহিদা বেশি কিন্তু মাছ মোকামে কম। অন্যদিকে, বৈশাখ মানে বড় মাছ।

এখন সবাই বড় মাছ কেনে। আবার ২ মাস ইলিশ ধরা বন্ধ ছিলো। যাদের স্টকে মাছ ছিলো তারাও দাম বাড়িয়ে দেবে।

তবে বাজারে যদি ইলিশ বেশি আসে আর ক্রেতা যদি কম থাকে তাহলে হয়তো দাম একটু কমবে। কিন্তু সেই দাম কমার সম্ভাবনা নেহায়েত উড়িয়ে দিচ্ছেন তিনি।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments