আন্তর্জাতিক

হিন্দিকে তৃতীয় সরকারি আইনি ভাষা স্বীকৃতি আবু ধাবির


সি নিউজ ডেস্ক : তৃতীয় সরকারি আইনি ভাষা হিসেবে হিন্দিকে অন্তর্ভুক্ত করেছে আবু ধাবি। আরবি ও ইংরেজির পরে এই ভাষাকে নির্বাচন করেছে তারা। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার পদক্ষেপ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

শনিবার আবু ধাবির আইন বিভাগ জানায়, কোনো অভিযোগ দায়ের হলে বক্তব্য গ্রহণের ধরনের বিষয়টি আরো বর্ধিত করেছে আবু ধাবি। তাই শ্রম মামলাগুলোতে আরবি ও ইংরেজির পাশাপাশি হিন্দি ভাষাতেও বক্তব্য গ্রহণ করা হবে।

এতে করে হিন্দি ভাষাভাষীরা আইনি প্রক্রিয়া, তাদের অধিকার ও কর্তব্য সম্পর্কে জানতে পারবে কোনো রকম ভাষাগত প্রতিবন্ধকতা ছাড়া। সেই সঙ্গে আইন বিভাগের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ভাষা সম্বলিত রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতির সুবিধাও থাকছে।

সরকারি কর্মকর্তাদের মতে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের জনসংখ্যা পাঁচ মিলিয়ন তার মধ্যে দুই তৃতীয়াংশই বিভিন্ন দেশের অভিবাসী। ইউএইতে ভারত সম্প্রদায়ের সদস্য ২.৬ মিলিয়ন। যেটা মোট জনসংখ্যার ৩০ শতাংশ। সেটাই দেশটির সবচেয়ে বড় নির্বাসিত সম্প্রদায়।

আবু ধাবির আইন বিভাগের আন্ডারসেক্রেটারি ইউসুফ সাইদ আল আবরি বলেন, বহুভাষা সম্বলিত অভিযোগ ফরম, অসন্তোষ ও দাবিদাওয়া তুলে ধরার প্রক্রিয়া ভবিষ্যতের আইনি সেবাকে উন্নত করার একটি ধাপ। সেই সঙ্গে আইনি পদ্ধতিতে স্বচ্ছতা আনারও ধাপ এটি।

আল আবরি যোগ করেন, সরলীকৃত ও সহজীকৃত ফরমের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতিতে আরো সুবিধা যোগ করা এবং মামলাকারীদের বিষয়গুলো তুলে ধরার ক্ষেত্রে এটি একটি পদক্ষেপ।

ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী শেখ মনসুর বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের পরামর্শেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৮ সালের নভেম্বরে আবু ধাবিতে দোভাষী মামলা গ্রহণের পদ্ধতি গ্রহণ করা হয়। সেখানে বিদেশীদের জন্য নাগরিক ও বাণিজ্যিক মামলার তথ্যাদি ইংরেজিতে অনুবাদ করার কথা বলা হয়।
 

 

Admin

0 Comments

Please login to start comments