লাইফস্টাইল

স্বাস্থ্যসুরক্ষায় লেবুপানির যত গুণ


সি নিউজ : শরীর ভালো রাখতে পানি পান করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই উপকার এক ধাপ বাড়াতে পানিতে মিশিয়ে নিতে পারেন লেবুর রস। লেবুর রস মেশানো পানি স্বাস্থ্যের জন্য বেশ চমৎকার। শুধু স্বাদেই নয়, গুণেও এর জুড়ি মেলা ভার। ভারী খাবার গ্রহণের সময় বা পর কোমল পানীয় বা অন্য কিছুর পরিবর্তে লেবুপানিই সবচেয়ে উপযোগী। বিশেষ করে প্রত্যক সকালে লেবুপানি পান করলে আপনার শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়বে এবং নানা সমস্যা দূর হবে।
বিজ্ঞানীরা বলছেন, লেবুর রস মিশ্রিত পানি পাকস্থলী ও অন্ত্রের অন্যান্য অংশ থেকে পাচকরস তৈরি ত্বরান্বিত করে। ভারী খাবারের সঙ্গে লেবুপানি পান করলে পেটে গ্যাস ও পেট ফাঁপা কমবে। এছাড়া প্রস্রাব ও মল পরিষ্কার রাখে। রুটিন মাফিক প্রতিদিন সকালে লেবুপানি আপনার স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করবে। স্বাস্থ্যের যে দিকগুলোয় লেবুপানি দারুণ ভূমিকা রাখে।
১. কিডনির পাথর প্রতিরোধে : লেবুর ভিটামিন ‘সি’ কিডনিতে ক্যালসিয়াম জমতে বাধা দেয়। ফলে কিডনিতে পাথর হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। তাই নিয়মিত লেবুপানি খেলে কিডনি পরিষ্কার থাকবে।
২. লিভারের কাজ : দেহের ফিল্টার হলো লিভার, একে বিপাকক্রিয়ার রসুইঘরও বলা হয়। এ কাজকে ত্বরান্বিত করতে লেবুর পানি অসাধারণ কাজে দেয়। ফ্যাটি লিভার ডিজিস প্রতিরোধের পাশাপাশি লিভারে জমে থাকা বিষ বের করে লেবু। ফলে আরো বেশি পাচকরসের নিঃসরণ ঘটে।
৩. মানসিক স্বাস্থ্য : মন ফুরফুরে করে দিতে অনন্য এই লেবু পানি। দুশ্চিন্তা, মানসিক চাপ কমানোর ক্ষমতা রয়েছে লেবুর সরবতে।
৪. শ্বাসযন্ত্রের সমস্যা দূর করতে : লেবু পানি কফ সারায়। ফলে শ্বাস নেয়ার সমস্যা দূর হয়। হাঁপানি রোগীদের জন্যও এটি উপকারী।
৫. হজমশক্তি বাড়বে : লেবুর রস আপনার পরিপাকনালী থেকে বিষাক্ত পদার্থ ও বর্জ্য বের করে দেয়। ফলে শরীরে হজমশক্তি বাড়ে।
৬. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় : লেবুর রসে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি থাকে, যা আপনার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সুসংহত করতে সাহায্য করে। ঠাণ্ডা ও ফ্লু জাতীয় রোগ নিরাময়েও বেশ কাজে দেয় এটি।
৭. পানি শূন্যতা রোধ : অনেকেই আছেন যারা পানি কম খান। এমনকি গরমকালেও। কিন্তু এ অভ্যাস মোটেও সুখকর নয়। এটা আপনাকে পানিশূন্যতা রোগে ভোগাতে পারে। লেবুতে প্রচুর ভিটামিন সি রয়েছে, যা শরীরকে শুষ্কতার হাত থেকে রক্ষা করে। তাই যত বেশি লেবুপানি পান করবেন, তত বেশি পানি শূন্যতা রোগ থেকে মুক্তি পাবেন।
৮. ত্বকের যত্নে : লেবুতে থাকা ভিটামিন ‘সি’ চেহারার বলিরেখা দূর করে। আমেরিকান সোসাইটি ফর ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন জানিয়েছে, যারা ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ খাবার খায়, তাদের বলিরেখা পড়ার আশঙ্কা একেবারেই কমে যায়।
৯. প্রদাহ কমায় : লেবু হাড়ের জয়েন্ট থেকে ইউরিক অ্যাসিড দূর করতে সাহায্য করে। এ ইউরিক অ্যাসিডই দেহে প্রদাহ সৃষ্টি করে।
১০. গলা জ্বালাপোড়া : গলা জ্বালাপোড়া কমাতে সহায়ক লেবুপানি। কারণ এতে আছে অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান। লবণ পানিতে যাদের উপকার হয় না তারা লেবু পানি দিয়ে গড়গড়া বা কুলকুচি করতে পারেন।
১১. ওজন কমায় : লেবুপানি পান করলে রাতারাতি ওজন কমবে না। কিন্তু দীর্ঘদিন পান করলে এ ব্যাপারে ইতিবাচক ফল পাবেন। কারণ লেবুতে অতিরিক্ত ক্ষুধা নিবারণ ও হজমশক্তি সুসংহত করার উপাদান রয়েছে।
১২. ইনস্যুলিন রেসিস্ট্যান্স কমায় : লেবুর ফ্ল্যাভনয়েড নামের উপাদান যকৃতে চর্বি ও ইনস্যুলিন রেসিস্ট্যান্স কমায়, রক্তের চর্বি, শর্করা বা ওজন কমাতে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে।
১৩. পেট ব্যথা সারাতে : হজমের সমস্যা একটি অতি প্রচলিত সমস্যা। যার অত্যন্ত কার্যকরী সমাধান কুসুম গরম লেবুপানি। লেবু-সরবত রক্ত পরিশোধনে সাহায্য করে। পাশাপাশি বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য এবং শরীরের দূষিত পদার্থ দূর করে।
১৪. মুখের দুর্গন্ধ : সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর মুখে বাজে গন্ধ হয়। খালি পেটে লেবুপানি খেলে এই অস্বস্তিকর অবস্থা থেকে পরিত্রাণ মিলবে। মূলত মুখে পানির অভাব এবং ব্যাকটেরিয়ার আনাগোনা থেকে বাজে গন্ধের সৃষ্টি হয়।
তাছাড়া খাবার গ্রহণের পর লেবুপানি খেলে মুখ থেকে পেঁয়াজ, রসুন বা অন্যান্য খাবারের বাজে গন্ধ দূর হয়।
১৫. ক্যানসার প্রতিরোধ : লেবুতে আছে প্রচুর ভিটামিন সি, যা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও উদ্দীপনা জোগায়। ওই সব উপাদান শুধু ত্বক কুঁচকে যাওয়াই রোধ করে না, বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার ঝুঁকিও কমায়।
হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে চিনি ছাড়াই পান করুন, খুব ভালো ফল পাবেন।
 

Admin

0 Comments

Please login to start comments