আন্তর্জাতিক

শ্রীলঙ্কায় গির্জা-হোটেলে সিরিজ বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ২৯০


সি নিউজ ডেস্ক : রোববার ইষ্টার সানডে উদযাপনের সময় ৩টি গির্জা ও ৩টি পাঁচতারকা হোটেলসহ ৮টি স্থানে সিরিজ আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯০। পুলিশ রোববার দুপুর পর্যন্ত সন্দেহভাজন হিসেবে ২৪ জনকে আটক করার কথা জানিয়েছে। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ফেসবুকসহ সব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ২ দফায় এ হামলা চালানো হয়। পরবর্তীকালে সন্ধ্যায় পুরো শ্রীলঙ্কায় জারি করা হয় কারফিউ। সোমবার সকাল ৬টায় তা তুলে নেয়া হয়েছে। 

শ্রীলঙ্কায় তামিল টাইগারদের বিদ্রোহ দমনের পর গত ১ দশকের মধ্যে রোববারের হামলাই ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ। তবে হামলার দায় এখনো কেউ স্বীকার করেনি।

তবে সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, রোববারের আত্মঘাতী সিরিজ বোমা হামলার আগেই বিবৃতির মাধ্যমে সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছিল। সিএনএন তাদের এক প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

গত ১১ এপ্রিল দেশটির পুলিশের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিতে এরকম একটি হামলার পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে যা উপেক্ষা করা হয়েছিল।

ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের তিনটি বড় গির্জা সেইন্ট অ্যান্থনির চার্চ, সেইন্ট সেবাস্টিয়ানের চার্চ আর জিয়ন চার্চে যখন ইস্টার সানডের প্রার্থনায় সমবেত হয়েছিল হাজারো মানুষ তখনই চালানো হয় নৃশংস আত্মঘাতী বোমা হামলা। হামলার অন্য লক্ষ্য ছিল- কলম্বোর পাঁচ তারকা হোটেল সাংগ্রি-লা, কিংসবেরি আর সিনামন গ্র্যান্ড পাঁচ তারকা হোটেলের বিদেশি পর্যটকরা।

শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অন্তত ৬টি দেশের ৩৫ জন বিদেশি নাগরিক ওই বোমা হামলায় নিহত হয়েছে। অন্য ৫ শতাধিক মানুষ আহত অবস্থায় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

কলম্বোর কার্ডিনাল আর্চবিশপ ম্যালকম রণজিত বলেছেন, ‘এটা আমাদের সবার জন্য কঠিন ও দু:খজনক পরিস্থিতি কারণ এমন ঘটনা ঘটবে তাও আবার ইস্টার সানেডেতে সেটি আমরা কখনোই প্রত্যাশা করিনি’।

Admin

0 Comments

Please login to start comments