আন্তর্জাতিক

শতাধিক রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে সৌদি 


সি নিউজ ডেস্ক: ভুয়া পাসপোর্ট ও কাগজপত্র ব্যবহারের মাধ্যমে সৌদি আরবে পাড়ি জমানো বেশ কয়েকশ সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে চায় রিয়াদ।

গত ৩ জানুয়ারি আসামের কারাগার থেকে পাঁচ রোহিঙ্গা মুসলিমকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর দিন কয়েকের মাথায় সৌদি সরকার তাদের দেশে আটক রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। রবিবার (৬ জানুয়ারি) কর্মকর্তাদের বরাতে এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য মিডল ইস্ট আই।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জেদ্দার শুমাইসি ডিটেনশন সেন্টারে অন্তত পাঁচ থেকে ছয় বছর যাবত বন্দি থাকার পর এবার তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি হাতে নিয়েছে সৌদি প্রশাসন।

শুমাইসি ডিটেনশন সেন্টারে আটক সেই রোহিঙ্গারা সম্প্রতি মিডল ইস্ট আইকে একটি ভিডিও ফুটেজ ও কয়েকটি অডিও বার্তা পাঠিয়েছে। সেখানে রোহিঙ্গা এক যুবককে বলতে শোনা যায়, ‘গত ছয় বছর যাবত আমি সৌদি আরবে রয়েছি। এখন আমাকে নাকি বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। যেখানে আমি অন্যান্য রোহিঙ্গাদের মতো শরণার্থী হয়ে থাকব।’

ডিটেনশন সেন্টারে থাকা সেই রোহিঙ্গা আরও বলেন, ‘আমি গত পাঁচ থেকে ছয় বছর ধরে এখানে রয়েছি। কিন্তু তারা এখন আমাকে বাংলাদেশে পাঠাচ্ছে। দয়া করে, আমার জন্য প্রার্থনা করুন।’ তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিরোধিতা করায় আমাদের বেশ কয়েকজনকে হাতকড়া পরিয়ে রাখা হয়েছে।’

রোহিঙ্গাদের পাঠানো অপর একটি অডিও বার্তায় শোনা যায়, ‘ডিটেনশন সেন্টারের কর্মকর্তারা মাঝ রাতে আমাদের সেলে এসে ব্যাগ গোছাতে এবং বাংলাদেশে ফেরতের জন্য প্রস্তুতি নিতে বলেছেন। তারা আমাকে হাতকড়া পরিয়েছে এবং এখন আমরা বর্তমানে অপেক্ষায় রয়েছি।’

সৌদি আরব থেকে রোহিঙ্গা ফেরত পাঠানোর বিষয়ে মানবাধিকার কর্মী ন্যা স্যা এলউইন বলেন, ‘বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর পরিবর্তে সৌদি আরব যদি এই রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মুক্তি দিয়ে দেয়, তাহলে তারা বাংলাদেশের শরণার্থী শিবিরে অবস্থানরত পরিবারের সদস্যদের সহায়তা করতে পারবেন।’

মানবাধিকারের এ কর্মী আরও বলছেন, ‘তারা অপরাধী নয় যে তাদের হাতকড়া পরাতে হবে। সৌদি কর্তৃপক্ষ তাদেরকে অপরাধী হিসেবে দেখছে, যা আমাকে খুবই মর্মাহত করেছে। এখন তাদের বাংলাদেশের শরণার্থী শিবিরে পাঠানো হবে এবং সেখানে শরণার্থীদের সংখ্যা সামনে আরও বৃদ্ধি পাবে।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশি পাসপোর্ট ও ভুয়া কাগজপত্র ব্যবহারের মাধ্যমে সৌদি আরবে পাড়ি জমানো অনেক রোহিঙ্গা বর্তমানে জেদ্দার শুমাইসি ডিটেনশন সেন্টারে আটকে আছেন। তবে এদের মধ্যে অনেকেই ভুটান, ভারত, পাকিস্তান এবং নেপালের পাসপোর্ট ব্যবহার করেও সৌদি আরবে প্রবেশ করেছেন।

Admin

0 Comments

Please login to start comments