খেলা

মাঠে ফিরছেন মুস্তাফিজ


সি নিউজ ডেস্ক : ছুটি কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন মুস্তাফিজুর রহমান। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলবেন বাঁহাতি এই পেসার। লম্বা বিরতির পর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলবেন মুস্তাফিজ।

২০১৪ সালের ২৭ ডিসেম্বর সবশেষ তিনি এই প্রতিযোগিতায় খেলেছিলেন। ২৫ লাখ টাকার ‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরিতে থাকা মুস্তাফিজকে ড্রাফট থেকে দলে নিয়েছিল শাইনপুকুর। ৬ এপ্রিলের পর থেকে তাদের হয়ে প্রিমিয়ার লিগে খেলার কথা ছিল তরুণ এই পেসারের।

গত ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর বাতিল হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের তৃতীয় টেস্ট। পরদিন দেশে ফিরে আসেন ক্রিকেটাররা। ঢাকা পৌঁছেই সাতক্ষীরা চলে যান মুস্তাফিজ। সেখানে কদিন আগে বিয়েও করেন তিনি। 

গত সপ্তাহে ঢাকায় ফেরা মুস্তাফিজ  রোববার প্রথমবারের মতো শাইনপুকুরের অনুশীলনে ছিলেন। টানা ৬ ওভার বোলিং করার পর অংশ নেন দলের মিটিংয়েও।

পরে জানান, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গাজী গ্রুপের বিপক্ষে মাঠে নামার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী, ‘এখানে একদিন অনুশীলন করেছি। তবে বাড়িতে কিন্তু জিম আর বোলিং নিয়মিতই করেছি।  

রোববার শাইনপুকুরের অনুশীলনে টানা বোলিং করেছি। এই মুহূর্তে আমার কোনো সমস্যা নেই। আশা করি, কাল খেলতে কোনো সমস্যা হবে না।

ভাবনায় আছে বিশ্বকাপ প্রস্তুতিও। তবে এই মুহূর্তে দলের জয়ে অবদান রাখার দিকে বেশি মনোযোগ মুস্তাফিজের, এত কিছু ভেবে তো খেলতে নামা যায় না। তবে প্রিমিয়ার লিগে ভালো করলে বিশ্বকাপে এই আত্মবিশ্বাস কাজে লাগবে।

মুস্তাফিজের ফেরার দিনে ডানহাতের বৃদ্ধাঙ্গুলে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

আপাতত একদিনের জন্য চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে আছেন আবাহনীর এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার। প্রাথমিকভাবে তার চোটকে গুরুতর মনে করছেন না বিসিবির ক্রীড়া চিকিৎসকরা।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের ইনিংসের ২৬তম ওভারে শর্ট কাভারে ফিল্ডিং করার সময় চোট পান মিরাজ।

সে সময় বোলিংয়ে ছিলেন অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন। অফ স্টাম্পের বাইরের ঝুলিয়ে দেওয়া বলে ড্রাইভ করেছিলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফীস।

ঝাঁপিয়ে বল থামানোর চেষ্টায় আঙ্গুুলে চোট পান মিরাজ। ফিজিওর সাথে মাঠ ছাড়া মিরাজ ডাগআউটে বসে আঙ্গুুল চুবিয়ে রাখেন ঠান্ডা পানিতে।

রূপগঞ্জের বিপক্ষে ৬ উইকেটে হারের পর ডাগআউটে গিয়ে সতীর্থের চোটের অবস্থা দেখেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক। পরে মিরাজ যান বিসিবির প্রধান ক্রীড়া চিকিৎসকের কাছে।

ব্যথা এখনো আছে মিরাজের। আপাতত তার চোট গুরুতর মনে করা চিকিৎসকরা তাকে রেখেছেন একদিনের পর্যবেক্ষণে।

ম্যাচ শেষে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, তার হাতের চোটটা খুব বেশি গুরুতর নয়। এক্স-রেও করতে হয়নি। চোটের জায়গায় ফোলা কিংবা ব্যথা নেই। আশা করি বড় ধরনের কিছু নয়।

জাতীয় দলের সবচেয়ে এ্যাকটিভ ফিল্ডার হিসেবে পরিচিত মিরাজ। বিশ্বকাপের আগে সেই মিরাজকে হঠাৎ চোটে পড়ে মাঠ ছাড়তে দেখে বিচলিত হয়ে পড়েছিলেন অনেকেই।

তবে বিসিবি চিকিৎসকের কথায় শেষ পর্যন্ত কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছে বাংলাদেশ দল।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments