জাতীয়

মধ্যরাতে সাংবাদিকদের মারধর ও ইয়াবা পকেটে দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা, এসআই প্রত্যাহার

অভিযুক্ত লালবাগ থানা পুলিশের উপপরিদর্শক কালাম। ছবি : সংগৃহীত


সিনিউজ: রাজধানীর আজিমপুরে শনিবার মধ্যরাতে এক সাংবাদিক ও তার ভাইকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে লালবাগ থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কালামের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় এসআই কালামকে রাতেই প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে বাসায় ফেরার পথে শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে আজিমপুরের বটতলায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সাংবাদিক কাজী মোবারক হোসেন। শনিবার রাতে খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন কনভেনশন হলে তার বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল।

মোবারক হোসেন বলেন, ‘গতকাল শনিবার রাতে খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন কনভেনশন হলে আমার বিবাহোত্তর সংবর্ধনা ছিল। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গ্রামের বাড়ি থেকে আমার বড় ভাই জাহাঙ্গীর আলম ও ভাতিজা রিয়াদ এসেছিল। তারা সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে একটি সিএনজি অটোরিকশায় করে রাত ১টার দিকে আজিমপুরের বটতলায় বাসার সামনে গিয়ে নামেন। এ সময় লালবাগ থানার এসআই কালামের নেতৃত্বে কয়েকজন পুলিশ এসে তাদের কাছে জানতে চায়, এত রাতে বাইরে কোথায় গিয়েছিলেন।  তখন উত্তরে তারা বলেন, ‘‘বিয়ের অনুষ্ঠানে।’’ কোনো কথা না বলে তাদের পুলিশের গাড়িতে উঠতে বলে। পুলিশ বলে, ‘‘তোদের কাছে ইয়াবা আছে। ’’এমতাবস্থায় আমার ভাই গাড়িতে উঠতে রাজি না হওয়ায় তারা আমার ভাইকে মারধর শুরু করে।'’

তিনি আরও বলেন, ‘এ সময় আমাদের গাড়িটিও সেখানে এসে পৌঁছায়। আমি তখন নেমে জানতে চাই তাকে কেন মারা হচ্ছে? এর মধ্যে লালবাগ থানার পরিদর্শক আসলাম ঘটনাস্থলে চলে আসেন। তিনি এসেই এনটিভির সাংবাদিক ফখরুল শাহীনকে থাপ্পড় মারেন। এক পর্যায়ে আমার কলার ধরে টেনে গাড়িতে তুলতে যান। তখন আমার সঙ্গে থাকা বিয়ের অনুষ্ঠানের অতিথি ১০-১২ জন সাংবাদিক আমাকে তার কাছ থেকে রক্ষা করেন।'’

এসআই কালামকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করে লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আশরাফ বলেন, ‘এ ঘটনায় পুলিশের এসআই কালামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ঘটনাটির বিস্তারিত তদন্ত চলছে।’

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments