আন্তর্জাতিক

ভিন্ন বর্ণের কংগ্রেস নারীদের দেশে ফিরতে বললেন ট্রাম্প


সি নিউজ ডেস্ক : ট্রাম্পের এই মন্তব্যে ডেমোক্র্যাটরা তো বটেই, রিপাবলিকান রাজনীতিবিদদেরও অনেককেই সমালোচনা করতে দেখা গেছে।

সম্প্রতি ডেমোক্র্যাট দলের ভিন্ন বর্ণের কয়েকজন কংগ্রেস সদস্যকে দেশে ফিরতে বলে নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, এমনটিই এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

রবিবার (১৪ জুলাই) এক সঙ্গে করা তিনটি টুইটের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কংগ্রেসের তিন নারীর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে 'ভয়ঙ্করভাবে' সমালোচনা করার অভিযোগ তুলেছেন। কংগ্রেস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সঙ্গে চারজন ভিন্ন বর্ণের কংগ্রেস সদস্যদের তর্ক-বিতর্কের পরের সপ্তাহে এমন টুইট করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ট্রাম্প তার টুইট বার্তায় বলেন, "খুবই অবাক লাগে দেখতে যখন 'প্রগতিশীল' ডেমোক্র্যাট কংগ্রেসের নারী সদস্যরা, যারা এমন দেশ থেকে এসেছেন যেখানে তাদের সরকার বিপর্যস্ত, বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত এবং সবচেয়ে অদক্ষ, বিশ্বের শ্রেষ্ঠ এবং সবচেয়ে ক্ষমতাশালী দেশ যুক্তরাষ্ট্রে এসে এখানকার মানুষদের বলছে কীভাবে আমাদের সরকার পরিচালনা করতে হবে।"

কংগ্রেসের সদস্যদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, “তারা কেন তাদের নিজেদের অপরাধপ্রবণ দেশে ফিরে গিয়ে তাদের পরিস্থিতির উন্নয়ন করে না! তারপর ফিরে এসে আমাদের জানালেই পারে যে কীভাবে সে কাজ করলো তারা।"

এরআগে, গত সপ্তাহজুড়ে কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি’র সঙ্গে ৪ ডেমোক্রেট নারী সদস্যের বেশ উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। বিবিসি’র প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ট্রাম্প ভিন্ন বর্ণের চারজন ডেমোক্র্যাট নারী কংগ্রেস সদস্যকে ইঙ্গিত করেছিলেন যাদের তিনজনই অভিবাসী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। এদিকে একইদিন থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি শহরে বৈধ কাগজপত্রবিহীন অভিবাসীদের বহিষ্কারের জন্য অভিযান শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

উল্লেখ্য, পেলোসির বিরুদ্ধে ওসারিও-কর্টেজ অভিযোগ করেছিলেন যে, সীমান্ত নিরাপত্তা বিল নিয়ে ডেমোক্র্যাটদের সাথে দ্বন্দ্বের সময় ভিন্ন বর্ণের নারী কংগ্রেস সদস্যদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করেছেন তিনি।

এদিকে, ট্রাম্পের এ টুইটের পর মুখ খুলেছেন পেলোসি নিজেই।একসপ্তাহ আগে নিজেদের ভেতর হওয়া উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় প্রসঙ্গে তিনি লেখেন, "আমাদের বৈচিত্র্যই আমাদের শক্তি এবং একতাই আমাদের ক্ষমতা।"

অপর এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, “বিদেশীদের সম্পর্কে অহেতুক আতঙ্ক তৈরি করার প্রবণতা থেকেই এসব লিখেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।”

মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্যের অবশ্য নেতিবাচক সমালোচনাই বেশি হয়েছে। ট্রাম্পের এই মন্তব্যে ডেমোক্র্যাটরা তো বটেই, রিপাবলিকান রাজনীতিবিদদেরও অনেককেই সমালোচনা করতে দেখা গেছে। সাবেক রিপাবলিকান শীর্ষ নেতা জন ম্যাককেইনের মেয়ে মেগ্যান ম্যাককেইন, যিনি নিজেও রিপাবলিকান সমর্থক কলামিস্ট, বলেন, "এই মন্তব্য বর্ণবাদী।"

Admin

0 Comments

Please login to start comments