খেলাধুলা

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার দেখা হচ্ছে সেমিফাইনালে!


সি নিউজ : ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার দেখা- প্রথম ম্যাচটা সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করলেও পরের দুটো জিতে ঠিকই ‘ই’ গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোতে পা রেখেছে ব্রাজিল। অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে ‘ডি’ গ্রুপ থেকে রানার্স আপ হয়ে নক আউট পর্বে উঠেছে আর্জেন্টিনা। তবে ফাইনালে যাবে একদল, অন্য দলকে নিতে হবে বিদায়! কারণ নাটকীয় গ্রুপ পর্ব শেষে সেমিফাইনালে দেখা হয়ে যেতে পারে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার। কারণ শেষ ষোলো থেকে সেমিফাইনালে যেতে হলে তাদের পাশে রয়েছে- মেক্সিকো, উরুগুয়ে, কলম্বিয়া, পর্তুগাল, ফ্রান্স সঙ্গে বেলজিয়াম। অন্য অর্ধে রয়েছে- স্পেন, রাশিয়া, ক্রোয়েশিয়া, ডেনমার্ক, সুইডেন, জাপান, সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ইংল্যান্ড। অর্থাৎ ফাইনালের ওঠার রাস্তায় সুয়ারেস, মেসি, নেইমার, গ্রিয়েজমান, রোমেলু লুকাকু, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো একে অন্যের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়াবেন। সেই মৃত্যু উপত্যকায় প্রথম লড়াই ফ্রান্স-আর্জেন্টিনার। পরের ম্যাচে মুখোমুখি বিশ্বকাপের প্রথম চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ে আর ইউরোপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল। অর্থাৎ কেউ থাকবেন এবং কেউ বিদায় নেবেন। শুধু এখানেই শেষ নয়। ফরাসিদের ‘গিলোটিন’ যদি এড়াতে পারে হোর্হে সাম্পাওলির দল, তাহলে পরের প্রতিপক্ষ হতে পারে রোনালদোর পর্তুগাল। যদি তারা জিততে পারে উরুগুয়ের বিপক্ষে। চলে যাবেন কোয়ার্টার ফাইনালেই। অন্যদিকে ব্রাজিলের শেষ ষোলোর প্রতিপক্ষ মেক্সিকো। প্রতিপক্ষ হিসেবে তারাও যে ঘাম ছুটিয়ে দেওয়ার মতো সেটা বোঝা গেছে গ্রুপ পর্বেই। মেক্সিকানদের ‘অ্যাজটেক অ্যাটাক’ বাঁচিয়ে ব্রাজিল যদি শেষ আটে উঠে যায়, তাহলে অভ্যর্থনায় থাকবে কলম্বিয়া-ইংল্যান্ড। ২০১৪ বিশ্বকাপের মতো আবারও যদি কলম্বিয়ার সামনে পড়ে ব্রাজিল, তাহলে শুধু জেতা নয়; ১১ জন অক্ষত বেরিয়ে আসাটাও হবে লক্ষ্য। কারণ কামিলো সুনিগার মারটা নিশ্চয়ই ভুলে যাননি নেইমার! তা না হয়ে যদি বেলজিয়াম হয়, বিপদ কমবে না। পর্তুগালের খপ্পর থেকে যদি বেঁচে বের হয়ে আসতে পারেন মেসিরা আর ব্রাজিলও যদি শেষ আটের বেড়া ডিঙাতে পারে, তাহলে সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়ে যাবেন মেসি-নেইমার। এরপর কারো স্বপ্ন, কারো দুঃস্বপ্ন! অঘটন আর নাটকীয়তার বিশ্বকাপ রাশিয়া এই মানচিত্রই এঁকে দিয়েছে। এই পর্যায় থেকে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা নিজ নিজ খেলায় জিতলে ১০ জুলাই দেখা হবে সেন্ট পিটার্সবার্গে। সর্বশেষ ১৯৯০ বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর ম্যাচে শেষবারের মতো বিশ্বকাপে দেখা হয়েছিল পেলে ও ম্যারাডোনার দেশের।

Admin

0 Comments

Please login to start comments