জাতীয়

বাজেটে ১৪ লাখ প্রতিবন্ধী শিশু আসবে বিশেষ ভাতার আওতায়


সি নিউজ ডেস্ক : শারীরিক প্রতিবন্ধিতাসম্পন্ন ব্যক্তিরা সমাজের বোঝা নয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিভিন্নভাবে এদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যায়। তিনি বলেন, এদের জীবনটা যেন অর্থবহ হয় সেদিকে দৃষ্টি রেখেই আমরা কাজ করছি। আগামী বাজেটে দেশের ১৪ লাখ প্রতিবন্ধী শিশুকে বিশেষ ভাতার আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) ১২তম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবসের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরাও প্লাস্টিক দিয়ে সুন্দর সুন্দর শোপিস তৈরি করতে পারে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই প্রতিভাগুলো কাজে লাগিয়ে এদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যায়। প্রতিবছর ২ ঈদ ও বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে যে শুভেচ্ছা কার্ড ছাপা হয়, সেগুলোতে প্রতিবন্ধী বা অটিস্টিক শিশুদের আঁকা ছবি ব্যবহার করা হয় বলে জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই ছবিগুলো সংগ্রহ করে সায়মা (সায়মা ওয়াজেদ পুতুল) একটি অ্যালবামও বের করেছে। সেগুলো আমরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মানুষকে উপহার দিই। কিন্তু এগুলো আমি বিনা পয়সায় নিই না। তাদের শ্রমের মূল্যটা আমি অবশ্যই দিয়ে দিই।’

এসময় প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা ও খেলাধূলায় এগিয়ে নিতে তার সরকারের নেওয়া বিভিন্ন কর্মকান্ডের কথা উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা। বলেন, ‘তাদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশে কাজ করছে সরকার। পাশাপাশি প্রতিটি জেলায় প্রতিবন্ধী পরিচর্যা কেন্দ্র তৈরি করা হবে।’ আগামী বাজেটে ১৪ লাখ প্রতিবন্ধী শিশুকে বিশেষ ভাতার আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমরা চাই এদের মতো মানুষদের জন্য কিছু করে যাবো। সমাজের বিত্তশালীদের প্রতি আমি আহ্বান জানাই এদের দিকে নজর দিতে। যেন বিত্তশালীরাও এদের জন্য কিছু না কিছু অনুদান দেন।’

একটি অটিস্টিক শিশু যখন জন্ম নেয় তার জন্য মা-বাবা কেউ দায়ী থাকেন না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনেক সময় মায়ের ওপর দোষারোপ করা হয়। আশা করি ভবিষ্যতে কেউ মাকে দোষারোপ করবে না। কারণ এটা মায়েরও কষ্ট। আল্লাহ একটা মানুষকে এভাবে তৈরি করেছেন। তাকে তো অবহেলা করা কোনো মানবিক কাজ হতে পারে না। মানুষ হিসেবে এটা করা উচিত না। ছোট্টবেলা থেকে আমরা শিখেছি কানাকে কানা বলিও না, খোঁড়াকে খোঁড়া বলিও না। এই শিক্ষা সবাইকেই দেওয়া উচিত।’

প্রতিবন্ধী বা অটিস্টিক জনগোষ্ঠী যেন আর অবহেলার শিকার না হয়, তারা যেন সমাজে যোগ্য স্থান পায় সেই প্রত্যাশা করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘তারা আমাদেরই সন্তান, আমাদেরই ভাই-বোন। তাদের সঙ্গে মিলেমিশে চলতে অনুরোধ জানাই।’বিশ্ব অটিজম দিবস পালন করায় জনসচেতনতা সৃষ্টি হচ্ছে, এখন আর কেউ অটিস্টিক বাচ্চা লুকিয়ে রাখে না বলেও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments