আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশের পর এবার ভারতে বন্ধ হলো টিকটক


সি নিউজ ডেস্ক : আদালতের রায়ের পর অবশেষে ভারতে নিষিদ্ধ হলো জনপ্রিয় ভিডিও অ্যাপ টিকটক। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে গুগলের প্লে স্টোর এবং অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর থেকে এই অ্যাপ ডাউনলোড বন্ধ করে দিয়েছে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার টিকটক বন্ধে আদালতের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে তা বাস্তবায়নের জন্য গুগল ও অ্যাপলকে চিঠি দিয়েছি। গুগল তাই এটির ডাউনলোড বন্ধ করে দিয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত মনে করছে- এই অ্যাপটির মাধ্যমে পর্নোগ্রাফি ছড়িয়ে পড়ছে। শিশুদেরও এটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থার মধ্যে ফেলে দিচ্ছে। এর আগে মাদ্রাসের আদালত অ্যাপটি নিষিদ্ধ করতে কেন্দ্রীয় সরকারকে অনুরোধ করে। দিল্লির আদালতও দেশটিতে টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধের পক্ষে রায় দেয়। আর অ্যাপল ও গুগলকে তাদের প্লাটফর্ম থেকে অ্যাপটি সরানোর আদেশ দেয়।

এর আগে মাদ্রাস আদালত দেশটিতে প্রথম এই অ্যাপটি নিষিদ্ধ করে। চীনের বাইটড্যান্স টেকনোলজি টিকটক অ্যাপের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করার জন্য হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল। তবে ভারতের শীর্ষ আদালত তাদের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে দেয়। গত ৩ এপ্রিল হাইকোর্ট টিকটককে নিষিদ্ধ করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে অবগত করে। এই অ্যাপ পর্নোগ্রাফিকে উৎসাহিত করেছে এবং যৌন শিকারিরা শিশু ব্যবহারকারীদের নিশানা বানাচ্ছে বলে আদালত জানায়

মূলত এক ব্যক্তি জনস্বার্থে মামলা দায়ের করার পরই এই অ্যাপ নিষেধাজ্ঞার প্রথম সূচনা হয়। ভারতের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, হাইকোর্টের আদেশ অনুসারে কেন্দ্র অ্যাপল ও গুগলকে চিঠি পাঠিয়েছিল। প্রতিষ্ঠান দুটি মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকেই আদেশ পালন করেছে।

অন্যদিকে, গুগল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, কোনো অ্যাপ সম্পর্কে গুগলের বিশেষ মন্তব্য নেই, তবে তারা স্থানীয় আইন মেনে চলবে। ভারত হচ্ছে টিকটকের সবচেয়ে বড় বাজার। দেশটিতে এই ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ ২৪ কোটি বারের বেশি ডাউনলোড করা হয়েছে। আর বিশ্বব্যাপী এ অ্যাপটির ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় পঞ্চাশ কোটি।

ভারতীয় টিকটক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারতে তাদের সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে ১২ কোটি। তবে গুগল প্লের এই নিষেধাজ্ঞায় তাদের কোনো সমস্যা হবে না। ভারতের বিচার ব্যবস্থার প্রতি তাদের আস্থা রয়েছে। তারা এ ব্যাপারে ইতিবাচক ফল পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী।

চলতি বছরের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য কমিশন শিশুদের গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের দায়ে টিকটককে ৫৭ লাখ ডলার জরিমানা করেছে। তবে টিকটক কনটেন্ট কিংবা আধেয় আপলোডের দায় গ্রাহকের ওপর চাপাতেই বেশি স্বচ্ছন্দ্যবোধ করে।

বাংলাদেশেও ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার অ্যাপটি নিষিদ্ধের ব্যাপারে বলেছিলেন।

Admin

0 Comments

Please login to start comments