ফারমার্স ব্যাংক চালু হচ্ছে নতুন ব্যবস্থাপনায়

ফারমার্স ব্যাংক চালু হচ্ছে নতুন ব্যবস্থাপনায়

সি নিউজ : নতুন ব্যবস্থাপনায় অবশেষে চালু হতে যাচ্ছে ফারমার্স ব্যাংক। ব্যাংকের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাসুদ ও ভাইস চেয়ারম্যান মারুফ আলমসহ ৪ পরিচালক বাদে অন্য পরিচালকরা পদত্যাগ করেছেন। ব্যাংকটির আগামী বোর্ড সভায় রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংকের চারজন এবং ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) একজন পরিচালক যোগ দেবেন। তাদের সঙ্গে আরো দু’জন স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এদিকে সরকারি চার ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের এমডিরা ফারমার্স ব্যাংকের শেয়ার কেনার জন্য ইচ্ছাপত্র (ইওআই) পর্ষদে জমা দিয়েছেন। এটি অনুমোদন হলে প্রতিষ্ঠানগুলো মূলধন জোগান দিয়ে পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হবেন।
এ প্রসঙ্গে ফারমার্স ব্যাংকের উপদেষ্টা প্রদীপ কুমার দত্ত বলেন, ‘গত মাসেই ব্যাংকটির পর্ষদ থেকে সব পরিচালক পদত্যাগ করেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। ব্যাংকের পর্ষদও সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে। আগামী বোর্ড সভায় রাষ্ট্রায়ত্ত পাঁচ প্রতিষ্ঠানের পাঁচ জন পরিচালক যুক্ত হবেন।’
জানা গেছে, ব্যাংকটির পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে তারা পদত্যাগ করেছেন। তবে একজন উদ্যোক্তা পরিচালক অভিযোগ করেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের চাপে তাদের পদত্যাগ করতে হয়েছে।
ব্যাংকটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাসুদ একজন শিল্প উদ্যোক্তা। তিনি ম্যানস এটায়ারস লিমিটেড, সানওয়ারার কোল্ড স্টোরেজ লিমিটেড এবং নূর শিপিং লাইনস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া নতুন ভাইস চেয়ারম্যান মারুফ আলম শেয়ার ট্রেডিং কোম্পানি খুরশীদ আলম সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, জাতীয় নির্বাচনের বছর হওয়ায় সরকার ব্যাংকটি বন্ধ করার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে না। এ কারণে ব্যাংকটি পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের পাশাপাশি সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) এই পাঁচ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ব্যাংকটি পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ব্যাংকটি পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক ১৬৫ কোটি টাকা করে মোট ৬৬০ কোটি টাকা এবং আইসিবি ৫৫ কোটি টাকাসহ সর্বমোট ৭১৫ কোটি টাকা মূলধন জোগান দেবে। ফারমার্স ব্যাংকে অনুমোদিত মূলধন রয়েছে এক হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৪০১ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধন। ফলে ব্যাংকটিতে মূলধনের প্রায় ৬৪ শতাংশ থাকবে সরকারি পাঁচ প্রতিষ্ঠানের দখলে। এই পাঁচ প্রতিষ্ঠানের এমডিরা পদাধিকার বলে ফারমার্স ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হিসেবে থাকবেন। বর্তমানে দু’টি প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ট্রাস্ট ব্যাংক মিউচুয়্যাল ফান্ড ও বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকার্ম মিউচুয়্যাল ফান্ড।