খেলাধুলা

প্রধানমন্ত্রী মনোনয়ন দিলে না বলার সুযোগ নেই: মাশরাফির বাবা


সিনিউজবাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাশরাফি বিন মুর্তজা নড়াইল থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারেন বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ.হ.ম মোস্তফা কামাল। মঙ্গলবার (২৯মে) ঢাকায় একনেক পরবর্তী এক সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী এ কথা জানান। তিনি বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাশরাফি ও সাকিব অংশগ্রহণ করতে পারেন। মাশরাফি একজন ভালো ছেলে। তার জন্য ভোটও প্রার্থনা করেছেন। তবে কোন আসন থেকে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারেন তা তিনি বলেননি। এ খবর মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়ার পর নড়াইলের বিভিন্ন প্রান্তে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ে। দুপুরের পর থেকে এ বিষয়টি ছিল মানুষের মুখে মুখে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।  নড়াইল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নড়াইল সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মলয় কুন্ডু বলেন, মাশরাফি একজন সৃজনশীল ও ভালো মানুষ। সে বিভিন্ন সময় সাধারন মানুষের উপকার করে থাকে, যা অনেকেই জানে না। সে যদি মনোনয়ন পায় তাহলে আশা করি জেলার সার্বিক উন্নয়ন তরান্বিত হবে। নড়াইল পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর বিশ্বাস বলেন, মাশরাফি নড়াইলের গর্বিত সন্তান। আওয়ামী লীগ যদি তাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে জান প্রাণ দিয়ে কাজ করবো এবং জয় ছিনিয়ে আনবো। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু বলেন, নড়াইলের দু’টি আসনের যে কোনো একটি থেকে আমি মনোনয়ন পাব বলে আশাবাদি। মাশরাফির মনোনয়নের ব্যাপারে বলেন, এটা দলীয় সিদ্ধান্ত। এ ব্যপারে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডঃ সুবাস চন্দ্র বোস দেশের বাইরে থাকায় তার কোন প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা মাশরাফির বাবা গোলাম মুর্তজা স্বপন বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি তাকে মনোনয়ন দেন তাহলে মাশরাফির না বলার সুযোগ নেই। নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারী তরিকুল ইসলাম অনিক বলেন, যদি মাশরাফি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পান তাহলে ফাউন্ডেশন এটাকে সাদরে গ্রহন করবে এবং পাশে থাকবে। কারণ তিনি এমপি হলে এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড আরও গতিশীল ও সহায়ক হবে।

এ ব্যাপারে মাশরাফি বিন মুর্তজার সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। উল্লেখ্য, মাশরাফি অনেক আগে থেকেই বিভিন্ন সামাজিক সেবার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।। ছোটবেলা থেকে খেলাধুলার পাশাপাশি গরিব মানুষকে বিভিন্ন সময় দান-খয়রাত করে থাকেন। নিরহংকার এ মানুষ কখনও এসব বিষয়ে কাউকে জানতে ও বুঝতে দেন না। সবকিছু নিজের মতো করেই করেন। গত ২০১৭ সালের ৪ সেপ্টেম্বর থেকে মাশরাফির নেতৃত্বে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন নামে সম্পূর্ণ সেচ্ছসেবী সংগঠন যাত্রা শুরু করে। ইতোমধ্যে এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন সাধারন ও দুস্থ মানুষকে আর্থিক সাহায্য, স্বাস্থ্য সেবা, শিক্ষা, আইসিটি, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম, পরিবেশ, পর্যটনসহ বিভিন্ন বিষয়ের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ নিয়ে কাজ শুরু করেছে এবং ব্যাপক প্রশংসাও কুড়াচ্ছে।

 

Admin

0 Comments

Please login to start comments