রাজনীতি

নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি আবোল-তাবোল বলছে: কাদের


বিএনপি লোক দেখানোর জন্য ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে এবং তাদের পরাজয় নিশ্চিত জেনে আবোল-তাবোল বলছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন।  

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক অনুষ্ঠানে বলেন, নির্বাচন কমিশন ব্যর্থ, অযোগ্য। তারা কখনও নির্বাচন পরিচালনার যোগ্যতা রাখে না। তারা এমন একটা দিনে নির্বাচন দিয়েছিল যেদিন একটি বড় সম্প্রদায়ের বড় পূজা ছিল।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে কাদের বলেন, তাদের এইসব আচরণ, কথাবার্তায় একটা বিষয় দিবালোকের মতো পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে - তারা যে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে এটা লোক দেখানো, তারা নির্বাচনে জেতার টার্গেটের চেয়ে বড় লক্ষ্য হচ্ছে নির্বানটাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা।

‘ইভিএম নিয়ে তারা বিষোদাগার করছে, ইভিএমের বিরুদ্ধে যতোটা না তার চেয়ে বেশি হচ্ছে নির্বাচনকে বিতর্কিত করার জন্য। তারা ইভিএমকে বিতর্কিত করে তাদের নির্বাচনে পরাজয়ের যে আভাস সেটাকে এড়ানোর জন্য এ বিষয়গুলোকে উপস্থাপন করছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, আসলে তারা (বিএনপি) নির্বাচনটাকে বিতর্কিত করতে চায়, প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়, তাদের নির্বাচনে জেতার কোনো লক্ষণ নেই। পরাজয় নিশ্চিত জেনে তারা আজকে আবোল-তাবোল বলছে। কখনও নির্বাচন কমিশনকে, কখনও ইভিএম নিয়ে, কখনও সরকারের ভূমিকা নিয়ে তারা বিভিন্ন ধরনের বক্তব্য রেখে যাচ্ছে। এগুলো আসলে নির্বাচনটাকে বিতর্কিত করার টার্গেট এবং সেটাই তারা করে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ফার্স্ট ট্র্যাক প্রজেক্টের সভার বিষয়ে জানতে চাইলে সড়কমন্ত্রী বলেন, ফার্স্ট ট্র্যাকে পদ্মাসেতু এবং মেট্রোরেল আছে; আমাদের দুটি প্রজেক্ট নিয়ে প্রধানমন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। অগ্রগতি ভালো। বঙ্গবন্ধু টানেল, মাতারবাড়ী, রূপপুর, পায়রা বন্দর নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

বড় প্রকল্পে সময়ও বাড়ে টাকাও বাড়ে- এ বিষয়ে কাদের বলেন, আমাদের আর টাকা বাড়ছে না।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গভীর সমুদ্রবন্দর স্থাপনে চীনের আগ্রহের বিষয়ে রোহিঙ্গাদের ফেরা নিয়ে আশা কমে যাচ্ছে কিনা- প্রশ্নে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, আমাদের স্বার্থ ক্ষুণ্ন করার মতো বিষয় এখনও দেখছি না। আমাদের স্বার্থ ক্ষুণ্ন করার মতো কিছু হলে আমরা অবশ্যই অবজেকশন রাইজ করবো।

থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়ে কাদের বলেন, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে এবং এমআরটি লাইন-৬ এর ৩ ও ৪ নম্বর প্যাকেজ বাস্তবায়ন করছে ইতাল-থাই। এর অগ্রগতি নিয়ে আলাপ আলোচনা হয়েছে। তাদের আরো দ্রুত করতে বলেছি।

ইতাল-থাইয়ের ফান্ড নিয়ে এক প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, তাদের নীতি গ্রহণ লেভেলের প্রতিনিধি মঙ্গলবার ঢাকা আসছেন। ফান্ডের বিষয়ে কোনো সমস্যা থাকলে তারা সমাধান করবে।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments