খেলাধুলা

ঢাকার কাছেই তরী ডুবল চিটাগং ভাইকিংসের


সি নিউজ ডেস্ক : গোটা আসর জুড়েই চিটাগং ভাইকিংসের ছিল জয়জয়কার । যে দলকে নিয়ে কেউ আশা করেনি তারাই কি না মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে উঠেছিল পয়েন্ট তালিকায় এক নম্বরে।

ঢাকা-সিলেট হয়ে আবার ঢাকায় রবিন রাউন্ড লিগে এক নম্বরে থাকা দল টানা হারে চট্টগ্রামে গিয়ে। পরপর তিন ম্যাচে হেরে নেমে যায় এক নম্বর থেকে।

শেষপর্যন্ত লিগ পর্ব শেষ করে পয়েন্ট তালিকায় তিন নম্বরে থেকে। ঢাকা ডায়নামাইটসের অবস্থাও একই। শুরু থেকে তারাই ছিল পয়েন্ট তালিকায় এক নম্বর দল। শেষদিকে টানা পাঁচ ম্যাচ হেরে বাদ পড়তে পড়তে শেষ চারে টিকে থাকা চার নম্বর দল হয়ে।

নিয়ম অনুযায়ী পয়েন্ট তালিকায় তিন আর চার নম্বর দল খেলছে এলিমিনেটর পর্বে। এই ম্যাচে যারা জিতবে তারা আবার কোয়ালিফায়ার-১ এর ম্যাচে হেরে যাওয়া দলের বিপক্ষে লড়তে হবে।

আজ সোমবার দিনের প্রথম ম্যাচে শের ই বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় চিটাগং ভাইকিংস। বাঁচা-মরার ম্যাচে ঢাকার কাছে ৬ উইকেটে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে টুর্নামেন্ট থেকে। অথচ এই ঢাকাকেই লিগ পর্বে দুই ম্যাচেই হারিয়েছিল চিটাগং! শেষ পর্যন্ত সেই ঢাকার কাছে এসেই বিদ্ধস্থ হতে হলো চিটাগংকে।

ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার বড় করতে পারেনি উদ্বোধনী জুটি। মাত্র ২২ রানের মাথায় ৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন ইয়াসির আলি। দুই নম্বরে ব্যাট করতে আসা সাদমান ইসলামকে নিয়ে প্রাথমিক ধকলটা সামাল দেন ওপেনার ক্যামেরুন দেলপোর্ট।

দেলপোর্টকে ৩৬ রান করে ফেরেন রান আউট হয়ে। এরপর মুশফিক ফেরেন মাত্র ৮ রান করে।  ২৪ রান করা সাদমানকে ফেরান সূনীল নারিন।

বাকি ছয় ব্যাটসম্যানের মধ্যে মোসাদ্দেক হোসেন খেলেন ৩৫ বলে ৪০ রানের ইনিংস। বাকি পাঁচজনের কেউই পার করতে পারেনি দশ রানের কোটা।

২০ ওভার শেষে ৮ উইকেটে ভাইকিংসের দলীয় রান থামে ১৩৫ রানে। ঢাকার হয়ে সুনীল নারিন একাই নেন ৪ উইকেট, এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন রুবেল হোসেন আর কাজী অনিক।

চিটাগংয়ের দেয়া লক্ষ্য টপকাতে গিয়ে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি ঢাকা ডায়নামাইটসের।

উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান উপল থারাঙ্গার ৪৩ বলে ৫১ রানের ইনিংসেই ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় চিটাগং। আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান নারিন খেলেন ১৬ বলে ৩১ রানের ঝড়ো ইনিংস। দুই নম্বরে ব্যাট করে রনি তালুকদার করেন ১৩ বলে ২০ রান। সাকিব যদিও ফেরেন রানের খাতা না খুলেই।

শেষদিকে নুরুল হাসান সোহানের ১৯ রানে ভর করে ১৭ ওভারেই ম্যাচ শেষ করে ঢাকা। ৬ উইকেটের জয়ে ডায়নামাইটসরা টিকে রইলো কোয়ালিফায়ার-২ খেলার জন্য।

ভাইকিংসের হয়ে ৩ উইকেট নেন খালেদ আহমেদ। ১টি উইকেট নেন নাঈম হাসান।

আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা ডায়নামাইটস মুখোমুখি হবে আজ সন্ধ্যায় কোয়ালিফায়ার-১ ম্যাচে যে দল হারবে তাদের।

Admin

0 Comments

Please login to start comments