জাতীয়

ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী


সিনিউজ: আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরা হয়েছে, কেনো নালিশে নয়। এসময় তিনি নিজেদের ভাবমূর্তি বাড়াতে হবে বলেও উল্লেখ করেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্ট্রাচার্যসহ ২৩ নেতাকর্মীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নাহিয়ান জয় ও লেখকের সঙ্গে ছিলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি তানজিল ভূইয়া তানভীর, রেজাউল করিম সুমন, সোহান খান, আরিফিন সিদ্দিক সুজন, আতিকুর রহমান খান, ইশাত কাসফিয়া ইরা; যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ চৌধুরী, আরিফুজ্জামান আল ইমরান, শামস-ই-নোমান, মো. শাকিল ভূইয়া, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, বেনজীর হোসেন নিশি; সাংগঠনিক সম্পাদক সাবরিনা ইতি, মামুন বিন সাত্তার ও সাজ্জাদ হোসেন।

এছাড়াও ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন; ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি মো. ইব্রাহিম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাইদুর রহমান হৃদয়; ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার সভাপতি মো. মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মো. জুবায়ের আহমেদ।

ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে গণভবনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সাংগঠনিক বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান এবং সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও বি এম মোজাম্মেল হকও।

নানা বিতর্ক, অভিযোগ ও সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে যথাক্রমে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানীকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এই দুই পদে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে আল নাহিয়ান খান জয় ও লেখক ভট্টাচার্যকে দায়িত্ব দেন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক অভিভাবক, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৬ সেপ্টেম্বর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে দায়িত্ব পালন শুরু করেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তিন দিনের মাথায় তারা গণভবনে সাংগঠনিক অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেলেন।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments