দেশজুড়ে

চাঁদপুরে মহিলা লীগের নেত্রীকে গলা কেটে হত্যা, স্বামী আটক


সিনিউজ চাঁদপুরে কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সদস্য ও ফরিদগঞ্জ গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহিন সুলতানা ফেন্সি (৫৫) নিজ বাসভবনে খুন হয়েছেন।  সোমবার রাতে শহরের ষোলঘর পাকা মসজিদ এলাকার নিজ বাসভবন থেকে শাহীন সুলতানা ফেন্সীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। নিহত শাহিন সুলতানা ফেন্সির ভাই ষোলঘর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নাঈমুর রহমান খান আরটিভি অনলাইনকে জানান, অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলামের প্রথম স্ত্রী আমার বোন শাহিন সুলতানা ফেন্সি। তার অনুমতি না নিয়ে পাঁচ বছর আগে জুলেখা নামের একটি মেয়েকে বিয়ে করেন তিনি। এ নিয়ে তাদের পরিবারের মধ্যে ঝগড়া চলছিলো। আমার বোন শাহিন সুলতানা ফেন্সিকে অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম হত্যা করেছে। আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। নিহত শাহিন সুলতানা ফেন্সির আরেক ভাই ফোরকান খান বলেন হত্যার পূর্বে অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলামকে কিছু লোকজন নিয়ে বাড়ির আশপাশে ঘুরাঘুরি করতে দেখা যায়। এর কিছুক্ষণ পরেই আমরা ফেন্সির হত্যার খবর শুনতে পাই। এ ঘটনা জহিরুল ইসলাম ছাড়া আর কেউ করতে পারে না। নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, শাহীন সুলতানা ফেন্সি তিন কন্যা সন্তানের জননী। তার দুই মেয়ে দেশের বাইরে এবং এক মেয়ে কুমিল্লাতে অবস্থান করেন। তার স্বামী অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম গোপনে আরেকটি বিয়ে করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ লেগে থাকত। প্রায় সময়ই জহির তার স্ত্রীকে মারধর করতো বলে অভিযোগ রয়েছে। এদিকে অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলামের ছোট ভাই নয়ন জানিয়েছেন, খারাপ এক মহিলাকে তার ভাই বিয়ে করেছেন। লোক মুখে শুনেছেন তবে দেখেননি। তার ধারণা কেউ চুরি বা ডাকাতি করতে এসে ফেন্সিকে খুন করেছে অথবা ভাইয়ের দ্বিতীয় স্ত্রী এই খুনের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওয়ালী উল্লাহ ওলী আরটিভি অনলাইনকে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ফেন্সির শোবার ঘরের খাটের সামনের মেঝেতে তার রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। মাথায় আঘাতের কারণে শাহীন সুলতানা ফেন্সী নিহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্ত শেষে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কারা জড়িত রয়েছে তা বলতে পারবে পুলিশ। এ ঘটনায় অ্যাডভোকেট জহিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, শাহিন সুলতানা ফেন্সি চাঁদপুর মহিলা কলেজের সাবেক ভিপি ছিলেন। এছাড়াও তিনি চাঁদপুর জেলা মহিলা লীগের দীর্ঘদিন সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। 

Admin

0 Comments

Please login to start comments