দেশজুড়ে

ঘরমুখী মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতের পর ঈদ করবো: এসপি হারুন


সি নিউজ,নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ বলেছেন, ঈদকে কেন্দ্র করে সবাই শান্তিপূর্ণভাবে যাতায়ত করতে পারে সে লক্ষ্যে পুলিশ কাজ করছে। চাষাড়া থেকে শুরু করে সব জায়গায় সাদা পোষাকে, হোন্ডায় আমাদের পুলিশ কাজ করছে। 

যানজট নিরসনে পুলিশ ভূমিকা রাখছে। এ লক্ষ্যে কাঁচপুর হাইওয়ে ও ভূলতা সড়কে আমাদের পুলিশ সদস্যরা দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন। সেখানে কোথাও কোনো যানজট নেই। 

চাষাড়া থেকে সাইনবোর্ড, পঞ্চবটি কমিউনিটি পুলিশ নিয়োগ দিয়েছি। আমরা আমাদের পুলিশের ছুটি বাতিল করেছি। এই ঈদে ঘরমুখী মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতের পর আমরা ঈদ করবো। 

এই লক্ষ্যে আমাদের পুলিশ রাস্তায় কাজ করছে। এই ঈদ পর্যন্ত তারা রাস্তায় থাকবে। এই কথা কেউ বলতে পারবেন না, যানজটের কারণে বাড়িতে ইফতার করতে পারছি না।

শনিবার দুপুরে চাষাড়া শহীদ মিনারে জেলা পুলিশের আয়োজনে গরিব, অসহায়দের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণের পর তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) সদ্য পুলিশ সুপার পদোন্নতি প্রাপ্ত মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) সুবাস চন্দ্র সাহা, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল ইসলাম, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর শাহীন শাহ্ পারভেজ, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম, সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদীন প্রমুখ। 

এ সময় পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ আরো বলেন, আগামী দিন গুলোতে  পুলিশ রাস্তা পারাপারের জন্য মানুষদের সহযোগীতা করবো। যানজটের কারণে আপনারা রাস্তায় আটকে থাকবেন না। চাষাড়া থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত যত্রতত্র ইউটার্ণ ছিলো তা বন্ধ করে দিয়েছি।  

সাইনবোর্ড থেকে ৪৫ স্থানে কাটা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে এখন কোন যান জট দেখবেন না। প্রত্যেক থানায় কমিউনিটি পুলিশ নিয়োগ করেছি। প্রচুর পরিমাণ কমিউনিটি পুলিশ কাজ করছে।  পুলিশের স্বল্পতা কারণে কমিউনিটি পুলিশ নিয়োগ দিয়ে মানুষের রাস্তা পারাপারের সহতায় করা হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ শহর হবে যানজটমুক্ত শহর হবে। রাস্তার পাশের ফুটপাত হকার মুক্ত থাকবে।

তিনি আরো বলেন, শহরে যারা ছিনতাই করে বেড়াতো এই রকম ৩০ জনকে আটক  করা হয়েছে শুধু ছিনতাইকারী নয়  যারা চাঁদাবাজ রাস্তায় দাড়িয়ে চাঁদাবাজি করতো তাদের কেউ আমরা গ্রেফতার করেছি।

বাংলাদেশ পুলিশ সব সময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে যারা অসহায়, গরিব, কষ্টে জীবনযাপন করে বাংলাদেশ পুলিশ তাদের জন্য কাজ করে। আমরা শীতে শীতার্তদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি এবং ঈদে গরিব মানুষের মাঝে ঈদ বস্ত্র বিতরণ করি। হয়তো সবাইকে দেয়া সম্ভব হয়নি। তবে অধিকাংশ অসহায় মানুষকে দেয়ার চেষ্টা করেছি।

আমরা ভূমিদস্যুদের বিষয় বার বার বলছি। কোন সাধারণ মানুষ মনে করেন আপনাদেরকে জমি জোর করে নিতে চায়  তাহলে আপনাদের জন্য দরজা খোলা আছে। কে কোথায় চাঁদাবাজি করছে তাদের নামের তালিকা আমাদের কাছে দেন। যেহেতু মন্ত্রী এমপি চান এলাকায় কোন চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু থাকবে না। আমরাও চাই না সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।  
 

Admin

0 Comments

Please login to start comments