লাইফস্টাইল

গ্রীন টির যত গুন


সি নিউজ ডেস্ক: চা পছন্দ করেন না এমন মানুষ পৃথিবীতে খুব কমই আছে। আমাদের দেশও চা খুব জনপ্রিয়। শীতকালে পাড়ার মোড়ে গরম এক কাপ চা না খেলে অনেকের যেন দিনই কাটতে চায়না।  তবে তখন মাথাব্যথার চিকিৎসা হিসেবে এটি ব্যবহৃত হতো। চা খেলে ভাল লাগে বা উপকার হয় এ তথ্য অনেক আগে থেকেই জানা ছিল।
গ্রিন টি এর উপকারিতা অনেক। জাপানের বিজ্ঞানীদের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, দিনে অন্তত ৫ কাপ সবুজ চা যারা পান করেন তারা শারীরিকভাবে অনেক প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে দৈনন্দিন কাজে গতিশীল ও চটপটে স্বভাবের হয়ে ওঠেন।

চীনে প্রায় ৪০০০ বছর আগে থেকে সবুজ চা বা গ্রিন টি ব্যবহার শুরু হয়েছিল। বর্তমানে তা সারা বিশ্বেই ছড়িয়ে পড়েছে। নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে ক্যান্সারের মতো জটিল রোগসহ আরও অনেক রোগের ঝুঁকিও কমিয়ে আনা সম্ভব অনেকাংশে।

এছাড়া এই চায়ের রয়েছে নানান উপকারিতা। যেমন-

- সবুজ চা দেহকোষকে ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করে, ফলে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।
- বার্ধক্য রোধ করে শরীরকে সুস্থ ও সুন্দর রাখে।
- হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়।
- কার্যকর ভূমিকা পালন করে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে।
- রক্তের কোলেস্টোরেলের মাত্রা কমিয়ে উপকারি কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়।
- নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে উপকারিতা পাওয়া যায় কিডনি রোগের।
- এছাড়া দাঁতক্ষয় এবং পেটের রোগেও উপকারী গ্রিন টি।
- শরীরে রক্ত পরিসঞ্চালন বাড়ায় এটি।

আজকাল এটি সৌন্দর্য চর্চার থেরাপিতেও ব্যবহার হচ্ছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষায় গ্রিন টিতে (সবুজ চা) এন্টিঅক্সিডেন্টের পাশাপাশি অন্যান্য পুষ্টিগুণও রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এ চা-কে স্টোর হাউস বলা যেতে পারে। নিয়মিত এ চা পান সূর্যের আলোর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

যৌবন পেরিয়েও ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে এ চা বেশ উপকারী। ত্বক ক্যানসার প্রতিরোধেও এটি কার্যকর। গ্রিন টি ত্বকের বলিরেখা দূর করে আরও মসৃণ করে তোলে। পান করার পাশাপাশি গ্রিন টি মাস্ক সরাসরি মুখমন্ডলেও ব্যবহার করা যায়। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, এতে মুখের মেছতা ও ব্রণসহ দাগ দূর করার ক্ষেত্রে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

 

 

Admin

0 Comments

Please login to start comments