রাজনীতি

গণবিরোধী সরকারের কাছে জনকল্যাণমূলক বাজেট কেউ প্রত্যাশা করতে পারে না: রিজভী


সিনিউজ: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রহুল কবির রিজভী বলেছেন, গণবিরোধী সরকারের কাছে জনকল্যাণমূলক বাজেট কেউ প্রত্যাশা করতে পারে না। আমিও করি না। গণবিরোধী একটা সরকার জনসম্পৃক্ত, জনকল্যাণমূলক একটা বাজেট দেবে এটা ভাববার কোনো কারণ নেই। আগে দেখি আগামীকাল বাজেট পেশ হোক। তারপর বাজেট বিশ্লেষণ করে কথা বলবো। বাজেট ঘোষণার আগে এ প্রসঙ্গে বলা ঠিক হবে না। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। ভারত সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের অর্থ হচ্ছে শেখ হাসিনা আগামী নির্বাচন একতরফা করতে গ্যারান্টি চাচ্ছেন ভারতের কাছ থেকে। এটাই একমাত্র প্রতিদান আশা করেন ভারতের কাছ থেকে। তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্পষ্ট করে বলেছেন, ২০৪১ সালের মধ্যে নিজেদের উন্নত দেশে উত্তরণ ঘটাতে শেখ হাসিনার স্বপ্ন বা দৃশ্যকল্প বাস্তবায়নে ভারত তাকে পূর্ণ সমর্থন দেবে। অতএব শেখ হাসিনার শান্তিনিকেতন সফর মহিমামণ্ডিত, এক অভূতপূর্ব প্রতিদানের কাব্যিক আলেখ্য। রিজভী আরও বলেন, ভারত তাদের গণতান্ত্রিক ভাবমূর্তি জলাঞ্জলি দিয়ে শুধুমাত্র জনসমর্থনহীন একটি সরকারকে টেকানোর জন্য বাংলাদেশের জনগণের ভোটাধিকারকে অবজ্ঞা করা যা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের ওপর হস্তক্ষেপের সামিল। ভারতকে উপলব্ধি করতে হবে, তারা যদি বাংলাদেশের জনগণের মতামতকে উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগের ক্ষমতা হারানোর সম্ভাবনাকে ঠেকাতে ভ্রান্তনীতি গ্রহণ করে, আগামী নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের পক্ষে অনধিকার হস্তক্ষেপ করে, তাতে বাংলাদেশের জনগণের মনে ভারতের গণতান্ত্রিক মর্যাদা ক্ষুণ্ন হবে এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত হিসেবেই জনগণের কাছে বিবেচিত হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমি বলব এগিয়ে যাচ্ছে তবে তা পিছনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। সারা দেশে সড়ক-মহাসড়ক এখন ছোট ছোট খালে পরিণত হয়েছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন শুধু সাইনবোর্ড আর বিলবোর্ডে শোভা পায়। দেশে সড়ক-মহাসড়ক ও গ্রামীণ সড়ক মিলে ৮৫ হাজার কিলোমিটার সড়কে বেহাল দশা বিরাজ করছে। সড়কের খানাখন্দ আর দুর্ভোগের আশঙ্কায় লাখ লাখ মানুষ ঈদে বাড়ি যেতে পারবে কিনা চিন্তিত। তারা বিকল্পভাবে বাড়ি যেতে ট্রেনের টিকিটের পিছনে ছুটছে, সেখানেও পাচ্ছে না কাঙ্খিত টিকিট। সরকারের বেপরোয়া লুটপাটের নীতির কারণেই সড়ক-মহাসড়কের দুর্দশা কাটছে না। ঈদের প্রাক্কালে ঘরে ফিরতে চরম দুর্গতির জন্য এই সরকারের প্রতি ধিক্কার জানাই।

Admin

0 Comments

Please login to start comments