এফআর টাওয়ারের আগুনের তদন্তে ৪ কমিটি


সি নিউজ ডেস্ক : বনানীর কামাল আতাতুর্ক সড়কের এফআর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার পক্ষ থেকে ৪টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মন্ত্রণালয় ও সংস্থাগুলো বলছে, এসব তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়া গেলে আগুন লাগার কারণ ও ভবনের নির্মাণ সম্পর্কিত ত্রুটি-বিচ্যুতি বা অনিয়মের তথ্য উঠে আসবে।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুর পৌনে ১টার দিকে আগুন লাগে এফআর টাওয়ারে। ফায়ার সার্ভিসের ২১টি ইউনিট ছাড়াও সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যরা আগুন নেভাতে কাজ করেন। ফায়ার সার্ভিসের জানানো সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, এ দুর্ঘটনায় ১৯ জন মারা গেছেন।

এফআর টাওয়ারের আগুনের সূত্রপাত কিভাবে এবং কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। সংস্থাটির মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসেন জানান, ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পরে কিভাবে আগুনের সূত্রপাত, সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে এফআর টাওয়ারের আগুনের ঘটনা তদন্তে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনের তথ্য জানায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষাসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. তরুণ কান্তি শিকদারকে আহ্বায়ক করে গঠিত তদন্ত কমিটির বাকি সদস্যরা হলেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের যুগ্মসচিব পর্যায়ের প্রতিনিধি, জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক পর্যায়ের ঢাকা প্রতিনিধি, গুলশান জোনের উপপুলিশ কমিশনার এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান ভুঁইয়া।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কমিটিকে আগুনের উৎস ও কারণ নির্ণয় করে প্রতিবেদন দাখিল করতে ৭ দিনের সময় দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এই ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করার জন্যে কী কী করা দরকার, তা নিয়েও সুপারিশ দিতে বলা হয়েছে এই কমিটিকে।

বনানীর আগুনের এ ঘটনা তদন্তে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের নির্দেশে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. ইয়াকুব আলী পাটওয়ারীকে আহ্বায়ক ও যুগ্মসচিব মো. ফাহিমুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে গঠিত কমিটির বাকি সদস্যরা হলেন- স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসীর, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সদস্য (পরিকল্পনা) আবু সাঈদ চৌধুরী, গণপূর্ত অধিদফতরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. মো. মইনুল ইসলাম এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম।

কমিটিকে বনানী মডেল টাউনের এফআর টাওয়ারের নকশা অনুমোদন ও ভবন নির্মাণে কোনো বিচ্যুতি থাকলে তা শনাক্ত করে দায়ীদের চিহ্নিত করতে বলা হয়েছে। কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে সাত কার্যদিবসের মধ্যে।

এছাড়া বনানীর এই অগ্নিকান্ড তদন্তে ৮ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বনানীতেই এক ব্রিফিংয়ে দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান জানান, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফজলুর রহমানকে প্রধান করে কমিটি করা হয়েছে। কমিটিতে মন্ত্রণালয়ের আরও একজন অতিরিক্ত সচিব, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন, ঢাকা জেলা প্রশাসন, বুয়েট ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে একজন করে সদস্য রাখা হয়েছে। ভবন নির্মাণে কোনো ধরনের কোনো ত্রুটি থাকলে তা জড়িতদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, বনানীর এই ভয়াবহ অগ্নিকন্ডের মাত্র ৩৬ দিন আগেই পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় আরেক ভয়াবহ অগ্নিকান্ড প্রত্যক্ষ করে রাজধানীবাসী। একটি কেমিক্যাল গোডাউন থেকে সূত্রপাত হওয়া ওই অগ্নিকান্ডে ৭০ জন প্রাণ হারান।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments