জাতীয়

এপ্রিলের মধ্যেই খালেদাকে নেয়া হবে নতুন কারাগারে


সি নিউজ ডেস্ক : কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরান কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কেরানীগঞ্জে নির্মিত নতুন কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে। এজন্য সেখানে সব প্রস্ততির কাজ চলছে। আগামী এপ্রিলের মধ্যেই এই স্থানান্তর হতে পারে বলে একটি গোয়েন্দা সূত্র নিশ্চিত করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে এতদিন ভিআইপি বন্দিদের জন্য আলাদা কোনো ভবন ছিল না। সেটি দক্ষিণ-পশ্চিম কর্নারে নতুন করে করা হয়েছে। ভবনের ভেতর ও বাইরে সবকিছুর কাজ শেষ করা হয়েছে। এখন চলছে বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ। এরপরই ঠিক হবে কবে নাগাদ খালেদা জিয়াকে সেখানে স্থানান্তর করা হবে। তবে এ ব্যাপারে কথা বলতে চাচ্ছেন না সংশ্লিষ্ট কেউই।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম মঙ্গলবার (১২ মার্চ) বলেন, ‘নতুন কারাগারে এর আগে মহিলা বন্দি ও ভিআইপি বন্দিদের কোনো ইউনিট ছিল না। সেটি করা হয়েছে।’

জেলার মাহবুব ইসলাম আরো জানান, নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগার নিয়ে ভিন্ন পরিকল্পনা আছে। সেখানে একজন বন্দি থাকায় নিরাপত্তার সমস্যা হচ্ছে। অনেক জনবলও সেখানে রাখতে হচ্ছে। সবমিলিয়ে সেখানে কোনো বন্দি রাখা হবে না এটাই স্বাভাবিক। তবে কবে নাগাদ খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে নেয়া হবে সে বিষয়ে ঊর্ধ্বতনরাই বলতে পাবেন।

এর আগে, কাশিমপুর কারাগারে ভিআইপি বন্দি ও মহিলা ওয়ার্ড থাকায় খালেদা জিয়াকে সেখানে নেওয়ার পরিকল্পনাও ছিল একসময়। কিন্তু তার অন্য মামলাগুলোর বিচার চলতে থাকায় কাশিমপুর থেকে এসে হাজিরা দেয়া অনেকটা দুরূহ হবে। এই বিবেচনায় ওই সিদ্ধান্ত থেকে তখন ফিরে আসে জেল কর্তৃপক্ষ।

গোয়েন্দা সংস্থার একটি সূত্র জানায়, খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে এপ্রিল মাসের মধ্যেই নেওয়া হতে পারে। সেখানে তিনি ভিআইপি মহিলা ওয়ার্ডে থাকবেন। এক্ষেত্রে মামলাগুলোর হাজিরা নিয়ে ভেবে দেখা হচ্ছে। এখনো তার বিরুদ্ধে দু’টি আদালতে কয়েকটি মামলার বিচারকাজ চলছে। এসব দিক এখনও ভেবে দেখা হচ্ছে।

কারা অধিদফতরের একজন ডিআইজি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘হাজিরার বিষয়টি বড় সমস্যা না। হয়তো এক তারিখ থেকে আরেক তারিখ পর্যন্ত একটা বড় সময় থাকতে পারে। আবার একই দিনে দুটো তারিখও রাখা যেতে পারে। একদিন এলেই যাতে দুইটিতেই হাজিরা দেয়া যেতে পারে। তবুও আমরা চাই নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারটি নিয়ে যে পরিকল্পনা ছিল সেটি বাস্তবায়িত হোক।’ নিরাপত্তা ও জনবলের বিষয়টিও এখানে ‘ফ্যাক্ট’ বলে মনে করেন তিনি।

খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে নেয়া হবে তা এরই মধ্যে কারারক্ষীদের মাঝেও জানাজানি হয়েছে। নাজিম উদ্দিন রোডে ডিউটি করেন কারারক্ষী শরিফুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছে বেশিদিন আর এখানে ডিউটি করতে হবে না। কারণ খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে নেয়া হবে।’ তবে ঠিক কবে নাগাদ সেখানে নেয়া হবে তা বলতে পারেননি তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন খালেদা জিয়া।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments