খেলাধুলা

আয়ে মেসি-রোনালদোর কাতারে কোহলি


সি নিউজ:  বাইশ গজের রাজত্বটা এখন তার। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে একের পর এক রেকর্ড গড়ে যাচ্ছেন বিরাট কোহলি। তবে মাঠের বাইরেও বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনায় থাকেন ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক। কোহলিকে ঘিরে নতুন খবর, আয়ের দিক দিয়ে বিশ্বখ্যাত ক্রীড়াবিদদের কাতারে চলে এসেছেন তিনি।  সম্প্রতি ফোর্বস ম্যাগাজিন বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ১০০ জন ধনী ক্রীড়াবিদের তালিকা প্রকাশ করেছে। সেই তালিকাতেই ৮৩ নম্বরে স্থান করে নিয়েছেন কোহলি। গত এক বছরে কোহলি উপার্জন করেছেন ২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আয়ের দিক দিয়ে তিনি পেছনে ফেলে দিয়েছেন সার্বিয়ার টেনিস গ্রেট নোভাক জোকোভিচ এবং ম্যানচেস্টার সিটির আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড সার্জিও আগুয়েরোর মত তারকাদের। সবচেয়ে বড় কথা হল, ক্রিকেট দুনিয়ার একমাত্র ক্রীড়াবিদ হিসেবে এই তালিকায় জায়গা পেয়েছেন কোহলি।  তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন বক্সার ফ্লয়েড মেওয়েদার (২৮৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার), বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি (১১১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) এবং জুভেন্টাসের পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (১০৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)।

কীভাবে ফোবর্সের এই তালিকায় জায়গা পেলেন কোহলি? মাঠের পারফরম্যান্সই মূলত তার আয়ের রাস্তা তৈরি করে দিচ্ছে। ১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারতে ক্রিকেট সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। আর সেই খেলার ‘পোস্টার বয়’ এখন কোহলি। তিনি নিজেই সাক্ষাৎ এক ‘ব্র্যান্ড’। বাইশ গজে ধারাবাহিক সাফল্যের অংশ হিসেবে কোহলি এখন একাধিক বানিজ্যিক পণ্যের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর। জানা গিয়েছে, বর্তমানে কোহলি ২১টি পণ্যের বিজ্ঞাপন করে থাকেন। এর মধ্যে রয়েছে ক্রীড়া প্রস্তুততকারক সামগ্রী, গাড়ি, পোশাক, বিভিন্ন ধরণের খাদ্য সামগ্রী, হেডফোন, এমনকি টুথব্রাশও! ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড থেকে মোটা অংকের বেতন পেয়ে থাকেন কোহলি। সঙ্গে আইপিএল এবং বিজ্ঞাপনী প্রচারণ বাবদ কোহলি উপার্জনে ছাড়িয়ে গেছেন সবাইকে। অথচ কয়েকবছর আগেও এই দিকটা শাসন করতেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে পৌঁছে গিয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। স্বাভাবিকভাবেই তার প্রতি আগ্রহ কমে গেছে সবার। তারা এখন ঝুঁকছে ‘হট কেক’ কোহলির দিকে। ভারতের উঠতি শ্রেণির কাছে তিনি বেশ জনপ্রিয়। বর্তমানে কোহলিকে ৩৭ মিলিয়ন মানুষ অনুসরণ করে ফেসবুকে। টুইটারে তার ভক্ত ২৭.১ মিলিয়ন। ইনস্টাগ্রামে আছে ২৫ মিলিয়ন অনুসারী।  কোহলির এই জনপ্রিয়তাকেই নিজেদের কাজে লাগাচ্ছে পণ্য উৎপাদকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। কোহলিরও পকেট ভারী হচ্ছে। উপার্জনে পাল্লা দিচ্ছেন দুনিয়ার বড় বড় সব ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে। তবে এত সবকিছু সত্ত্বেও ধোনিকে এখনও ছুঁতে পারেননি তিনি। ২০১৫ সালের ধোনি মোট উপার্জন করেছিলেন ৩১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। কোনো ভারতীয় ক্রীড়াবিদের সেটাই ছিল সর্বোচ্চ উপার্জন। তবে যেভাবে এগোচ্ছেন, তাতে ধোনিকে ছাড়িয়ে যেতে খুব বেশি দিন লাগবে না কোহলির।

Admin

0 Comments

Please login to start comments