জাতীয়

আবরার হত্যার চার্জশিট নির্ভুল হয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা মামলায় আমাদের তদন্ত সংস্থা পুলিশ বাহিনীর মাধ্যমে যে চার্জশিট দিয়েছে, তা নির্ভুল হয়েছে বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। বুধবার (১৩ নভেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে সার্বিক আইন শৃঙ্খলা সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আমরা আগেই বলেছি আমরা নির্ভুল চাজর্শিট দেয়ার জন্য আমরা প্রচেষ্টা নেব। বিচারের বিষয়টি পুলিশের অধীনে নয়, বিচার আদালত করবে। তবে খুব শিগগিরই এর বিচার হবে, আমরাও আশা করছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আবরার হত্যা মামলার পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা চলছে। আমাদের কাছে তথ্য থাকলে তাদের ধরে ফেলতাম। তবে বাইরে বের হওয়ার কোন সুযোগ নেই। ঘরের কোথাও আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে হয়তো আছে, আমরা ধরে ফেলব।

সড়ক আইন বাস্তবায়ন প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সড়ক বিভাগের মন্ত্রী বলেছেন কিছুদিন আইনটি সম্পর্কে সবাইকে জানানো হচ্ছে। সময়মতো তিনি আইনটি প্রয়োগে আমাদের নির্দেশনা দেবেন। দেশের মানুষের মধ্যে আইন মেনে চলার প্রচেষ্টা রয়েছে। বিআরটিএতে ভিড় লেগে গেছে। কারণ জনগণকে বুঝালে তারা আইন মানার চেষ্টা করে।’

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সড়ক পরিবহনের আইন নিয়ে কাজ করতে কতটা প্রস্তুত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ট্রাফিক পুলিশের যে দায়িত্বটি, তারা তা সম্পূর্ণভাবেই পালন করছে। তাদের মধ্যে আন্তরিকতার অভাব নেই, প্রচেষ্টায়ও দুর্বলতা দেখছি না। পৃথিবীর সব জায়গায়ই যানজট হয়, বাংলাদেশের যানজটের জন্য বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। পর্যায়ক্রমে যানজট সমস্যার সমাধান হবে আশা করি।

দুর্নীতি বিরোধী অভিযান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কোন অভিযান থেমে নেই। অভিযান চলছে ও চলবে।

বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যুদ্ধাপরাধী বা মানবতাবিরোধী অপরাধী ও বিতর্কিত ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ না জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের বিষয়ে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু নিয়মনীতি রয়েছে। এরমধ্যে জাতীয় পতাকার নির্দিষ্ট মাপ ও অন্যান্য বিষয় রয়েছে। জাতীয় পতাকার নির্দিষ্ট মাপ ছাড়া কোনও পতাকা ব্যবহার করা যাবে না। এছাড়া, মলিন, ছেঁড়া, রঙ চটা পতাকা উত্তোলন করা যাবে না। শুধুমাত্র ১৬ ডিসেম্বর যেকেউ পতাকা উত্তোলন করতে পারবেন। পরদিন পতাকা নামিয়ে ফেলতে হবে।

উল্লেখ্য, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২৫ জনের বিরুদ্ধে বুধবার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে (২১) গত ৬ অক্টোবর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার কয়েকজন নেতাকর্মী।

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments