অন্তত বিচার শেষ হয়েছে, সেটাই সন্তুষ্টি: আইনমন্ত্রী


তিন দশক আগে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের লালদিঘীতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জনসভা শুরুর আগে গুলি চালিয়ে ২৪ জনকে হত্যা এবং প্রায় দুই দশক আগে ঢাকার পল্টনে সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলার বিচার শেষ করতে পারাকে ‘সন্তুষ্টি’ হিসেবে দেখছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

সচিবালয়ে পাবনা আইনজীবী সমিতিকে বই কেনা বাবদ ৩০ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের প্রশ্নে আইনমন্ত্রী বলেন, কয়েক দশক পরে হলেও বিচার যে শেষ করা গেছে, সেটাই ‘সন্তুষ্টি’।

সোমবার চট্টগ্রাম ও ঢাকার আদালত থেকে আলোচিত এই দুই মামলার রায় আসে। চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে শেখ হাসিনার জনসভার আগে গুলি চালিয়ে ২৪ জনকে হত্যার মামলায় পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। আর ঢাকার পল্টন ময়দানে সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলার মামলায় হরকাতুল জিহাদের (হুজি) ১০ জঙ্গির ফাঁসির রায় এসেছে।

বহুল প্রতীক্ষিত এই দুই রায়ের বিষয়ে সাংবাদিকরা আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘গতকাল দুটো রায় হয়েছে। দুটি রায়ের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিকটা হচ্ছে চট্টগ্রামের ঘৃণিত অপরাধটা ১৯৮৮ সালে হয়েছে। ৩১ বছর পর এই বিচার সমাপ্ত হল। সিপিবির বোমা হামলা ২০০১ সালে হয়েছে। এর মানে ১৮ বছর পর আমরা এর বিচার শেষ করতে পেরেছি। সন্তুষ্টি প্রথমেই, যে অন্ততপক্ষে বিচারটি শেষ হয়েছে।’

রায় কবে নাগাদ কার্যকর হবে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আদালতের কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। এখানে ফাঁসি দেয়া হয়েছে। এটা অটোমেটিক্যালি হাইকোর্ট বিভাগে কনফার্মেশনের জন্য যাবে। হাইকোর্ট বিভাগ শুনানি শেষ করলে তারপর রায় কার্যকর হবে।’

সিনিউজ ডেস্ক

0 Comments

Please login to start comments